সিঁদুরে সীসা থাকতে পারে

সতর্কীকরণ : সীসা থাকতে পারে

সিঁদুরে সীসা থাকতে পারে, যা শিশুদের মধ্যে শেখা ও আচরণের সমস্যা তৈরি করতে পারে, গর্ভবতী মহিলাদের গর্ভপাত, এবং বন্ধ্যাত্ব ঘটাতে পারে।

– নাড়াচাড়া করার পরে আপনার হাত ধুয়ে নিন।
– শিশুদের থেকে দূরে থাকুন।
– আপনি যদি সিঁদুর ব্যবহার করেন, তাহলে আপনার ডাক্তারকে রক্তে সীসার উপস্থিতি পরীক্ষার জন্য বলুন।

আরো তথ্যের জন্য 311 নম্বরে ফোন করুন বা nyc.gov/leadfree দেখুন।

–NYC Health

========
নিউইয়র্ক সিটির হেলথ ডিপার্টমেন্ট থেকে জনস্বার্থে নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত বাংলা পত্রিকাগুলোতে প্রকাশিত হয়েছে।

এটা দেখার পর পুরানো দিনের কথা মনে পড়ল–হাসি পেলো খুব– সিঁদুর/সীসা–এই টপিকে কত ক্যাচালই না হইছে! কাউরে কিছু বুঝানো যায় নাই। হিন্দুরা কত যুক্তি, সংস্কৃতি আর ‘বৈজ্ঞানিক’ তথ্যই না হাজির করছে এর পক্ষে! আর নাস্তিকদের কপালে জুটছে গালি…

নিউইয়র্ক সিটির হেলথ ডিপার্টমেন্ট যখন টাকা খরচ করে এই ব্যাপারটা এভাবে ছাপিয়ে এখন নিউইয়র্কের হিন্দুদের সতর্ক করছে, তখন নিশ্চয়ই তারা এই সিঁদুর/সীসা ঘটিত উল্লেখযোগ্য অনেক কেস পেয়েছে। এবং ব্যাপারটার গুরুত্ব উপলব্ধি করেই এরকম পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয়েছে।

আমেরিকার বাইরে ভারত/বাংলাদেশের ডাক্তাররাও নিশ্চিয়ই এই ব্যাপারটা অনেক আগে থেকেই জানতেন। হিন্দু ডাক্তাররা? তারাও জানতেন! কিন্তু মোজলেম ডাক্তাররা কিছু বলেন নি–হিন্দুদের ধর্মানুভূতিতে আঘাত লাগবে ভেবে… আর হিন্দু ডাক্তাররা–নাহ এই গোমাতার সন্তানদের নিয়া নতুন কিছু বলার নাই!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *