বিয়ে চিরন্তন

বিয়ে চিরন্তন

প্রেমের ক্ষেত্রে জয়ী হয়ে কেউ শিল্পী হতে পারে না, বড়জোর বিয়ে করতে পারে।
–ওয়াশিংটন অলস্টন

সেইসব মেয়েরাই ভাগ্যবতী, যাদের একজন বাল্যপ্রেমিক থাকে, কিন্তু তার সঙ্গে বিয়ে হয় না, বিয়ে হয় একজন বেশ স্বাস্থ্যবান, সচ্ছল, নির্ভরযোগ্য মানুষের সঙ্গে, তারপর বাকি জীবন সেই বাল্যপ্রেমিকটির সঙ্গে কাছাকাছি বা দূরত্বের মধুর সম্মান থেকে যায়।
–সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়

একজন মেয়ের পক্ষে অবশ্যই বিয়ে করা উচিত প্রেমের জন্য। এবং যতদিন সে সেই প্রেম না পায় ততদিন তার একের পর এক বিয়ে করে যাওয়া উচিত।
–সা সা গ্যাবর

কোনো মেয়ের কাছে প্রেম করার অর্থ হচ্ছে পুরুষকে এটি আবিষ্কার করতে সাহায্য করা যে, সে তাকে (মেয়েটিকে) বিয়ে করতে যাচ্ছে।
–চার্লিন মিল্টন

অল্প বয়সে এক ধরনের মন থাকে, চনমনে চাঙ্গা থাকে অব্যবহৃত শরীর, হঠাৎ একজনের সবকিছুই ভালো লেগে যায়, অন্যসব মানুষ থেকে আলাদা করে নিই তাকে, মনে হয় তাকে পেলে আর কিছু চাই না–কিন্তু যখন তাকে পাওয়া গেলো, ধরা যাক তারই সঙ্গে বিয়ে হলো যখন, তখন সেই মোহাচ্ছন্ন ভাবটা এক গ্রীষ্মেই ঝরে পরে, এক বর্ষার জলেই ধুয়ে যায়।
–বুদ্ধদেব বসু

প্রেমে পড়া বিয়ে কখনোই দীর্ঘস্থায়ী শুভ পরিণাম আনতে পারে না, যদিনা পারস্পরিক বোঝাপড়ার ভিত্তিতে সেটা গড়ে ওঠে; যেখানে প্রেম নেই সেখানে বিবাহ একটা আনুষ্ঠানিকতা। নিষ্প্রাণ আয়োজনের মধ্যেই শেষ হয়। এবং নিছক ভণ্ডামির মতোই ঈশ্বরের কাছে নিরানন্দময়, অপ্রীতিকর বস্তু।
–মিল্টন

মেয়েরা বিয়ের আগে কান্নাকাটি করে, আর পুরুষেরা বিয়ের পর।
–পোলিশ প্রবাদ

বিয়েটাই একমাত্র বস্তু যেটাকে সব ছেলে এড়াতে চায়, আর সব মেয়েছেলে আগ্রহসহকারে ঘটাতে চায়।
–ওয়াইড

মেয়েদের লক্ষ রাখতে হবে যত তাড়াতাড়ি তারা বিয়ে বসতে পারে আর পুরুষের লক্ষ রাখতে হবে যত বেশিদিন তারা অবিবাহিত জীবনযাপন করতে পারে।
–জর্জ বার্নার্ড শ

বিয়ে দীর্ঘমেয়াদি বেশ্যাবৃত্তি ছাড়া আর কিছু নয়। বিবাহরূপ দীর্ঘমেয়াদি বেশ্যাবৃত্তিতে মেয়েরা তাদের যৌন-সম্পদের বিনিময় করে আজীবন ভরণপোষণের সঙ্গে।
–ইংরেজি প্রবাদ

কর্মবিমুখ মেয়েরাই ধনীর ছেলে বিয়ে করতে চায়।
–হেলেন বাউল্যান্ড

গরিব লোক যদি ধনী নারী বিয়ে করে তা হলে সে স্ত্রী পায় না, পায় একজন শাসক।
–আলেকজেনডিডেস

মেয়েরা বিয়ে করে সমাজে প্রবেশের জন্য, পুরুষ বিয়ে করে বেরিয়ে যাওয়ার জন্য।
–তাইপে

বিয়ে দুটি হৃদয়ের মিলন ঘটায়, কিন্তু এই মিলন আবিষ্কারের জন্যে চলতে থাকে আজীবন তীব্র সংগ্রাম।
–অজ্ঞাত

বিয়ে মানেই যন্ত্রণা, যদিও সেই উৎসবের দিনে কোনো দুঃখের রেশ থাকে না।
–স্যামুয়েল জনসন

বিয়েটা একটা রোমঞ্চকর উপন্যাস, যার প্রথম পরিচ্ছেদেই নায়কের মৃত্যু হয়ে থাকে।
–অজ্ঞাত

বাঙালি জাতির এটি পরম সৌভাগ্য,
হেন লোক নাই যার নাই বৌভাগ্য।
–প্রমথ চৌধুরী

বিয়ে হওয়ার এক বছর পরেই পুরুষের বয়স সাত বছর বেড়ে যায়।
–বেকন

বিয়ে করা হয়।
–জন বে

দগ্ধ হওয়ার চেয়ে বিয়ে করা ভলো।
–অস্কার ওয়াইল্ড

বিয়ের অনেক জ্বালা, কিন্তু চিরকৌমার্যে কোনো সুখ নেই।
–ড. জনসন

মেয়েটি যে-ছেলেকে ভালোবাসে তাকে বিয়ে করার চেয়ে ছেলেটি যে মেয়েকে ভালোবাসে তাকে বিয়ে করাই শ্রেয়।
–আরবি প্রবাদ

পুরুষ বিয়ে করে কারণ সে পরিশ্রান্ত। মেয়েরা বিয়ে করে কারণ তারা উৎসুক, কিন্তু বিয়ের পর তারা উভয়েই হতাশ হয়।
–অস্কার ওয়াইল্ড

যিনি সম্পদের লোভে বিয়ে করেন, তিনি নিজের সত্তাকে বিকিয়ে দেন।
–টমাস ফুলার

বিবাহের অব্যবহিত পরে স্বামী-স্ত্রী উভয়ের মনই উদ্দাম আবেগপূর্ণ হয়ে ওঠে। স্ত্রীর ইচ্ছে হয় সব সময় স্বামীর সঙ্গে গল্প করেন। ঘরের মধ্যে স্বামীর সঙ্গে হাসাহাসি ও আলাপ করেন। একটু পুরনো হলে অর্থাৎ বিয়ের দু’এক বৎসব পর এ আবেগ থাকে ন।
–ডা. লুৎফর রহমান

একবার বিয়ে করাটা কর্তব্য, দুবার বিয়ে করাটা একটা বোকামি ও ভুল। তৃতীয়বার বিয়ে করাটা পাগলামি।
–ওলন্দাজ প্রবাদ

সত্যিকার বিয়ের একটিমাত্র শর্ত থাকবে যারা পরস্পরকে ভালোবাসে তারাই স্বামী-স্ত্রী।
–এলেন কী

বিয়ে হচ্ছে দুই বিপরীত স্নায়ুতন্ত্রের শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান।
–এমিল ব্রুটকি

ভালোবাসাহীন বিয়ে একটা বিয়েই নয়, ভালোবাসাই বিয়েকে পবিত্র করে, আর ভালোবাসা দ্বারা যে-বিয়ে পবিত্র হয়, সেটাই আসল বিয়ে।
–লিও টলস্টয়

বিয়ে করার অর্থ হচ্ছে নিজের অধিকারকে অর্ধেক করে নেওয়া এবং কর্তব্যকে দ্বিগুণ করা।
–শোপেনহাওয়ার

বিয়ে করার অনেক যন্ত্রণা, কিন্তু চিরকুমার ব্রতে কোনো সুখ নেই।
–ড. জনসন

মেয়েরা যাকে গাল দেয় তাকেও বিয়ে করতে পারে, কিন্তু যাকে বিদ্রূপ করে তাকে নৈব নৈব চ।
–রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

বিয়ে করলে মানুষকে মেনে নিতে হয়, তখন আর গড়ে নেওয়ার ফাঁক পাওয়া যায় না।
–রবীন্দ্রনাথ টাকুর

অন্যকে নয়, আমাদের নিজেদের পরিতৃপ্ত রাখার জন্যই আমরা বিয়ে করি।
–আইজাক বিকারস্টাফ

বিয়ে করলে বড় কাজ করার ক্ষমতা থাকে না, প্রতিদিন তাকে ভাতের চিন্তা করতে হয়।
–বেকন

বিয়ে না করলে যদি চলত তা হলে কোনো পুরুষই নারীকে বিয়ে করত না।
–বালজাক

স্ত্রী-পুত্রের ভরণ-পোষণ যোগাবার ক্ষমতা অর্জনের আগে বিয়ে কোরো না।
–এডমন্ড বার্ক

বিয়ের সময় বাইরের সৌন্দর্য দেখে ভুলো না, অন্তরের সৌন্দর্যের সন্ধান করো।
–আর বিদ্যাভাস

প্রেম বিয়ের সূর্যোদয় এবং বিয়ে প্রেমের সূর্যাস্ত।
–ফরাসি প্রবাদ

বিয়ে একটা জুয়াখেলা–পুরুষ বাজি রাখে স্বাধীনতা, আর নারী বাজি রাখে সুখ।
মাদামোয়াজেল

মোটা পণ লালসায় মন ভরো না।
শালী যেথা নেই সেথা বিয়ে করো না।
–গোলাম মোস্তফা

কাঁটাচামচ দিয়ে খেতে গিয়ে তোমরা খাওয়ার একটা আনন্দ থেকে বঞ্চিত হও। যারা ঘটকের হাত দিয়ে বিয়ে করে তারা কোর্টশিপের আনন্দ থেকে বঞ্চিত হয়। হাত দিয়ে স্পর্শ করেই খাবারের সঙ্গে কোর্টশিপ, আঙুলের ডগা দিয়েই স্বাদ গ্রহণের শুরু।
–রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

বিয়ে করার জন্যে বা যুদ্ধে যাবার জন্যে কাউকে উপদেশ দিও না।
–স্পেনীয় প্রবাদ

বিয়ে বলতে দুই বা ততোধিক ব্যক্তির মধ্যে সাময়িক বা আজীবন দৈহিক এবং সন্তান-পালনের সম্মতিসূচক সম্পর্ক বোঝায়।
–হ্যাভলক এলিস

একমাত্র প্রেমই বিবাহকে পবিত্র করতে পারে। আর একমাত্র অকৃত্রিম বিবাহ হচ্ছে সেটা যেটা প্রেমের দ্বারা পবিত্র।
–লিও টলস্টয়

যদি ইন্দ্রিয় দমন করিতে না পারে, তবে বিবাহ করুক–কেননা আগুনে জ্বলা অপেক্ষা বরং বিবাহ করা ভালো।
–বাইবেল

বিবাহ পুরুষকে দেয় স্থৈর্য, নারীকে দেয় প্রতিষ্ঠা। স্বামীর বাড়ায় দায়। স্ত্রীর বাড়ায় দাম। সে দাম নারীর নিজস্ব নয়। কানের উপর পাউডার এবং নখের উপর রঙের মতো সেটা প্রক্ষিপ্ত।
–যারাবর

তুমি যদি একজন অসুন্দর মহিলাকে বিবাহ কর তবে সে তোমার হবে এবং যদি একজন সুন্দরী মহিলাকে বিবাহ কর তবে তুমি তার হবে।
–বিয়ন

বিবাহ জিনিসটা মিষ্টান্ন দিয়াই শুরু হয়, কিন্তু সকল মধুরেণ সমাপ্ত হয় না।
–রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

বিবাহ হচ্ছে একটা ভেষজ যা উত্তম পুরুষ ও উত্তম নারীর ওপর বিভিন্নভাবে ক্রিয়া করে। সে (নারী) তাকে যথেষ্ট ভালোবাসে না, তার প্রতিকার, বিবাহ। সে (পুরুষ) তাকে একটু বেশিই ভালোবাসে–তারও প্রতিকার, বিবাহ।
–চার্লস রিড

জঞ্জাল ফেলবার সবচেয়ে ভাল ঝুড়ি হচ্ছে বিবাহ।
–রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

যে-রমণী বিনা কারণে বিবাহবন্ধন ছিন্ন করতে চায়, বেহেশতের সুঘ্রাণ তার জন্য নিষিদ্ধ।
–আল-হাদিস

যখন কোনো ব্যক্তি বিবাহ করিল তখন তাহার ধর্মকর্ম অর্ধেক সম্পাদিত হইল।
–আল-হাদিস

বিবাহপ্রথার প্রায় শুরুর কাল থেকেই বিবাহবিচ্ছেদেরও শুরু; আমার মনে হয় বিবাহ-প্রথা মাত্র কয়েক সপ্তাহ বেশি প্রাচীন।
–ভলতেয়ার

হিন্দুশাস্ত্রমতে বিবাহ কোনো সম্পাদিত দলিল মোতাবেক চুক্তি না, এটি নারী ও পুরুষের আদি ও প্রাকৃতিক পবিত্র বন্ধনবিশেষ যার বিচ্ছেদ ঘটানো যায় না।
–বি. সি. রায়

তাড়াহুড়ো করে বিবাহ করলে পরে অনুতপ্ত হতে হয়।
–কংগ্রিভ

প্রেমের অভাবে নয়, বরং বন্ধুত্বের অভাবেই বিবাহ অসুখের হয়।
–ফ্রেডরিক নিৎসে

বুদ্ধিমান পুরুষ তার বিবাহ সম্পর্কে একটু খতিয়ে চিন্তা করলে বেশ বুঝতে পারে, এটা হল প্রভু-ভৃত্য সম্পর্কে সে হল ভৃত্য।
–অজ্ঞাত

যতক্ষণ নরনারীর হৃদয়ের মধ্যে সত্যিকার প্রেমের যোগ থাকে, ততক্ষণই বিবাহ সার্থক ও সত্য। যে-মুহূর্তে প্রেমের মৃত্যু, সেই মুহূর্তেই উদ্বাহু-বন্ধন উদ্বন্ধন (ফাঁস) হইয়া উঠে।
–অজ্ঞাত

মানুষের একটা বয়স আছে যখন সে চিন্তা না করেও বিবাহ করতে পারে। সে বয়স পেরোলে বিবাহ করতে দুঃসাহসিকতার দরকার হয়।
–রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

পরস্পর পরস্পরের জুলুম ঘাড় পেতে বহন করবে, এজন্যই তো বিবাহ।
–রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

যে-বিবাহভোজে দরিদ্রদের পরিত্যাগ করে শুধু ধনী ব্যক্তিদেরই আমন্ত্রিত করা হয়, তা সর্বনিকৃষ্ট ভোজ।
–আল-হাদিস

এই তিন জিনেসের দেরি করিবে না–নামাজ, জানাজার দাফন ও বালেগা মেয়ের বিবাহ।
–আল-হাদিস

জন্ম, মৃত্যু, বিয়ে–তিন বিধাতা নিয়ে।
–আবহমানকালের বাণী

সৌজন্যে : ভবেশ রায় এবং মিলন নাথ / ‘বাণী চিরন্তন’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *